Tuesday , October 15 2019
Home / সকল বিভাগ / চার ধরণের সবজি খাওয়ার উপকারিতা

চার ধরণের সবজি খাওয়ার উপকারিতা

করলা খাওয়ার উপকারিতা

করোল্লা হচ্ছে একমাত্র সবজি ,  যার স্বাদ তেতো হয় কিন্তু এর অনেক উপকারী প্রতিক্রিয়া আছে  । এটি জ্বর নিরাময় ও প্রতিরোধ করে ,  কুখাদ্য খাওয়ার

প্রতিক্রিয়াকে রোধ  করে এটি একটি বল বৃদ্ধিকারক,  পাকস্থলীকে শান্ত রাখা , রোচক ক্রিয়া সম্পাদনে সাহায্য করা এবং জীবাণুনাশক দ্রব্য । এর উদ্ভিদ নির্যাস উপাদান আছে ,  যার রক্তে এবং প্রস্রাবে শর্করার ভাগ কমায় ।  একজন বহুমূত্র রোগীর  প্রতিদিন সকালে খালি পেটে 120 থেকে 140 মিলি লিটার  টাটকা করলার রস পান করা উচিত এবং সেইসঙ্গে রক্তে শর্করার পরিমাণ কতটা আছে,  তা লক্ষ্য রাখা প্রয়োজন । বহুমূত্র রোগকে আয়ত্তে রাখার জন্য প্রতি দিন একবার বা দু’বার এক চামচ করে করলার গুড়ো সাদা পানিতে   মিশিয়ে খাওয়া উচিত ।

 যেহেতু এটি একটি রক্ত শোধন করা বস্তু,   সেজন্য চর্ম ও রক্তের   নানা রকমের অসুখের  প্রতিবিধান করে  – যেমন চুলকানি , দাদ , এবং অপর ভাঙ্গাস  সংক্রমণে  কার্যকরী  । মদ্যপানে লিভারের ক্ষতি এবং হজমে গোলমাল এর ফলে উৎপন্ন খারাপ ফলকে প্রতিরোধ  করে ।

লাউএর রস হৃদপিন্ডের পক্ষে ভালো

লাউ এর রসে নানা রকমের উপকারী উপাদান আছে ।  পুরো ফলটিকে টুকরো টুকরো করে যে রস বের করে নেওয়া হয়,  সেই রস হৃদপিন্ডের  রক্ষাকবচ সৃষ্টি করে তৃষ্ণা  নিবারণ করে ,  যখন পাতলা পায়খানা করে গলা শুকিয়ে যায় শরীর থেকে অধিক পরিমাণ সোডিয়াম বিসর্জন হয় সেই বিসর্জন রোধ করে এবং ক্লান্তি দূর করে 15 মিনিট পানির সঙ্গে মিশিয়ে একবার খেলে প্রসাবের অমূলক বৃদ্ধির জন্য ভাবের অনুভূতি আসে তাকে কমিয়ে ফেলা যায় । এটি রান্না করে খেলে প্রসাবে স্বাভাবিকতা এবং শরীর শীতল করার একটা প্রভাব বিস্তার করে । এটি খাওয়ার পর আরাম এবং সন্তুষ্টি দুটোই পাওয়া যায় ।

টম্যাটো হৃদপিণ্ডের জন্য ভালো কেন ?

টম্যাটো হৃদপিণ্ডের পক্ষে ভালো  কারন এতে নিকোটিন এসিড আছে , যা কলেস্ত্রল কমায় এবং এতে ভিটামিন – কে আছে , যা রক্তক্ষরণ বন্ধ করে । টম্যাটোকে একটি  স্বাভাবিক পচনরোধক বলা হয়  এবং টম্যাটো শরীর কে সক্রমনের হাত থেকে রক্ষা করে । টম্যাটোর রস শরীরে খুব তারাতারি এল্কালিন সৃষ্টি করে , দাতের মাড়ি ও  ক্যাপিলারি – গুলোকে শক্ত ভাবে সুগঠিত হতে সাহায্য করে ।

গাজর খাওয়ার উপকারিতা

গাজর সালফার , ক্লোরিন ও সোডিয়ামে  সমৃদ্ধ হয় এবং আয়োডিনের  চিহ্ন কিছু পাওয়া যায় । গাজরের পাতা মিনারেলস , প্রোটিন ও ভিটামিন সমৃদ্ধ ।  পুষ্টিসমৃদ্ধ বৈশিষ্ট্যের জন্য একে গরিবের আপেল বলা হয়  । এটি আরোগ্যকারী , লালনকারী বা পুষ্টিকর এবং প্রশমনকারী হয় ,  নতুন রক্ত তৈরি করে এবং পুরাতন রক্তকে শোধন করে । এর কাঁচা রস রক্তের কোলেস্টেরলের পরিমাণ কমায় ।  দুর্বল হৃৎপিণ্ডের নিরাময়ের জন্য গাজরের জ্যাম একটি কার্যকর প্রতিকার ।   গাজরের রসকে অলৌকিক বলা হয় । কার্যকরীভাবে আয়ত্তে আনে এবং আরোগ্য করে – আলসার , কলাই টিস , এপেন্ডিসাইটিস , পেটের যন্ত্রণা ডায়ারিয়া ।

রাতের খাবারের সাথে সালাদ খাওয়ার উপকারিতা

আপনি যেকোন সময় যতটা ইচ্ছা সালাদ খেতে পারেন , তবে একটা কথা সর্বদা মনে রাখতে হবে যে , আপনি যেন অপেক্ষাকৃত কম দৈহিক ওজন সম্পন্ন না হয়ে যান ।  যদি আপনার বর্তমানের ওজন প্রয়োজনের তুলনায় কম হয়,  তবে আপনার ওজন আরো কমতে থাকবে ।  সালাদ প্রচুর পরিমাণ খাদ্যদ্রব্য দেয় এবং খাদ্য থেকে যে কোন শর্করা আছে সেগুলো কমাতে সাহায্য করে।

About admin

Check Also

PARAGRAPH WRITING SOUND POLLUTION

 Any abnormal change in anything is called pollution . Any  kind of pollution is dangerous ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

xu hướng thời trangPhunuso.vnshop giày nữgiày lười nữgiày thể thao nữthời trang f5Responsive WordPress Themenha cap 4 nong thongiay cao gotgiay nu 2015mau biet thu deptoc dephouse beautifulgiay the thao nugiay luoi nutạp chí phụ nữhardware resourcesshop giày lườithời trang nam hàn quốcgiày hàn quốcgiày nam 2015shop giày onlineáo sơ mi hàn quốcshop thời trang nam nữdiễn đàn người tiêu dùngdiễn đàn thời tranggiày thể thao nữ hcmphụ kiện thời trang giá rẻ